মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

দর্শনীয় স্থান

ক্রমিক নাম কিভাবে যাওয়া যায় অবস্থান
রোয়াইল বাড়ী

নেত্রকোণা জেলার অন্তর্গত কেন্দুয়া উপজেলা সদর থেকে কেন্দুয়া ঢাকা সড়ক হয়ে প্রায় ১৩ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে বেতাই নদীর পূর্ব তীরে অবস্থিত পুরার্কীতি কেন্দুয়ার রোয়াইল বাড়ী।এখানে উপজেলা সদর থেকে পায়ে হেটে, রিকশায় অথবা অটোরিকশা যোগে যাওয়া যায়।

জফরপুর- বিশালয়তন প্রাচীন খোঁজার দিঘি এবং ধ্বংস প্রাপ্ত মসজিদ ও অট্রালিকার চিহ্ন বিদ্যমান কেন্দুয়া উপজেলা কমপ্লেক্স হতে রিক্সা/মরসাইকেল যোগে ১ কি.মি পূর্ব-উত্তর অবস্থিত
দনাচাপুরু প্রাচীন গান্ধার শিল্পের নিদর্শন, ধ্বংস প্রাপ্ত পঞ্চরত্ন মন্দির, কালিমন্দির ও বিশালায়তন দিঘি উপজেলা হতে ৭ কি.মি। সিনজি/অটোরিস্কা/মরসাইকেল যোগে নেত্রকোণা- কেন্দুয়া রাস্তা হয়ে দুর্গাপুর নামক স্থান দিয়ে ডানদিকে মোড় নিয়ে সোজা নওপাড়া পরিষদ কমপ্লেস্ক পর্যন্ত। এর পর হতে ৫০০ গজ পিছনে দর্শনীয় স্থানটি অবস্থিত।
নলীনি রঞ্জন সরকার এর পরিত্যাক্ত বাড়ী উপজেলা কমপ্লেক্স হতে পূর্ব দিকে ৩.০০ কি.মি দূরে কেন্দুয়া উপজেলার চিরাং ইউনিয়নের সাজিউড়া গ্রামে দর্শনীয় স্থানটি অবস্থিত।
গোগবাজার উপজেলা কমপ্লেক্স হতে ৪ কি.মি উত্তরে গোগবাজার নামক প্রসিদ্ধ খারবারের স্থান।
রোয়াইলবাড়ি দূর্গ ময়মনসিংহ, কিশোরগঞ্জ ও নেত্রকোণা থেকে বাস বা যে কোন ধরণের ছোটোখাটো যানবাহন নিয়ে পৌঁছা যায় রোয়াইলবাড়িতে। ঢাকা থেকে বাসযোগে নেত্রকোণা, নেত্রকোণা থেকে কেন্দুয়া। কেন্দুয়া পৌরসভা থেকে বাস/রিকসা/সিএনজি যোগে সাহিতপুর বাজার যেতে হবে। সেখান থেকে অটো/ইঞ্জিনচালিত যন্ত্র দিয়ে সরাসরি রোয়াইলবাড়ী বাজারে যাওয়া যায়। বাজার থেকে পায়ে হেটে বা রিক্সায় যাওয়া যায়।